করোনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু

করোনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জেলা বিএনপি নেতা ও বিআরটিসি শপিং কমপ্লেক্স ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি ওমর ফারুক খান (৫২) মারা গেছেন। ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার (২৬ জুন) দুপুরে তিনি মারা যান।

বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. খায়রুল বাশার মমিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. শহিদুল হক সাংবাদিকদের জানান, ওমর ফারুক খান ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন। সম্প্রতি তার শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। গত ২২ জুন টিএমএসএস মেডিক্যাল কলেজ ও রফাতউল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতাল পিসিআর ল্যাবে নমুনা দেন তিনি। পজিটিভ রিপোর্ট এলে তাকে মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। এখানে অবস্থার অবনতি হলে ২৩ জুন রাতে তাকে ঢাকার মহাখালীর ইমপালস জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানে অক্সিজেন সাপোর্ট ও প্লাজমা দেওয়া হয়। এরপরও শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে তিনি মারা যান।

দলীয় সূত্র জানায়, বিএনপি নেতা ফারুক বগুড়া সদর উপজেলার শেকেরকোলা ইউনিয়নের উত্তর তেলিহারা গ্রামের মৃত আবদুস সাত্তার খানের ছেলে। তিনি বৃহত্তর বগুড়া সদর থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বগুড়া জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিআরটিসি শপিং কমপ্লেক্সের নির্বাচিত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিনি পরিবার নিয়ে শহরের মালতিনগরে বসবাস করতেন।

বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম জানান, ওমর ফারুক খান তার কমিটির সদস্য ছিলেন। তার মৃত্যুতে সংগঠনের বড় ক্ষতি হলো। তিনি জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

Comments