খালেদা জিয়ার সাময়িক মুক্তি চেয়ে সরকারকে চিঠি

খালেদা জিয়ার সাময়িক মুক্তি চেয়ে সরকারকে চিঠি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য সাময়িক মুক্তি চেয়ে সরকারের কাছে আবেদন করেছে তার পরিবার। বুধবার খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর এ চিঠি দেন। খালেদা জিয়ার অনুমতি নিয়ে এই চিঠি দেয়া হয়েছে। তবে চিঠিতে প্যারোলের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

চিঠিতে শামীম ইস্কান্দার জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ। তার দ্রুত উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। এ জন্য তাকে সাময়িক মুক্তি দেয়া হোক। এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। চিঠির বিষয়ে জানতে শামীম ইস্কান্দার কিংবা খালেদা জিয়ার পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। জানা গেছে, খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে সরকার ও বিএনপি এবং তার পরিবারের মধ্যে একটা সমঝোতা চলছে বলে গুঞ্জন রয়েছে। জামিনে বিদেশে যাবেন খালেদা জিয়া এমন শর্তে পুনরায় হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবীরা। ২৭ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ জামিন আবেদনে নতুন কোনো কারণ না পাওয়ায় কথা জানিয়ে তা খারিজ করে দেন।

এর ফলে আইনি প্রক্রিয়ায় খালেদা জিয়ার মুক্তির পথ সঙ্কুচিত হয়ে যায়। ফের সামনে চলে আসে প্যারোলের বিষয়টি। এমন পরিস্থিতিতে পরিবারের পক্ষ থেকে তার সাময়িক মুক্তি চেয়ে সরকারের কাছে আবেদন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে খালেদা জিয়ার সম্মতিও রয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, পরিবারের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ইতিবাচক মনোভাব দেখালে খালেদা জিয়া শেষ মুহূর্তে প্যারোলের জন্য আবেদন করতে পারেন। এ ব্যাপারে তার সম্মতি নিতে পরিবারের পক্ষ থেকে বারবার চাপ দেয়া হচ্ছে। শনিবারও পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে হাসপাতালে দেখা করেন। সেখানে তারা জামিন ও প্যারোলের বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন বলে জানা গেছে।

এর আগে পরিবারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বরাবর একটি চিঠি দেয়া হয়। খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, তার অবস্থা খুবই খারাপ। উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়া প্রয়োজন। পরিবারের পক্ষ থেকে তার চিকিৎসা ব্যয় বহন করা হবে বলেও চিঠিতে বলা হয়েছে।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে বোন সেলিমার সাক্ষাৎ : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে শনিবার বিকালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বোন সেলিমা ইসলাম। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, তার (খালেদা জিয়া) স্বাস্থ্যের অবস্থা আগের মতোই আছে। কোনো কিছুর পরিবর্তন হয়নি। তার স্বাস্থ্যের অবস্থা খুবই খারাপ। শ্বাসকষ্টের কারণে নিঃশ্বাস নিতে পারছেন না। তার বাম হাত সম্পূর্ণ বেঁকে গেছে। সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারছেন না, খেতে পারছেন না। খেলে বমি হয়ে যাচ্ছে। আমরা তাকে জীবিত অবস্থায় হাসপাতাল থেকে নিয়ে যেতে পারব কিনা, তা নিয়ে সন্দিহান।

খালেদা জিয়ার মামলার সর্বশেষ যে জামিন আবেদন করা হয়েছে সে বিষয়ে তিনি সবকিছু জানেন কিনা- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সেলিমা ইসলাম বলেন, তিনি সবকিছু জানেন। আমরা তো বলছি, সরকার অন্তত মানবিক দিকটা বিবেচনা করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিক।

এর আগে বিকাল ৩টার দিকে বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন পরিবারের পাঁচ সদস্য। সেখানে তারা প্রায় দেড় ঘণ্টা অবস্থান করেন। সেলিমা ইসলাম ছাড়াও সদস্যদের মধ্যে ছিলেন- খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার ও তার স্ত্রী কানিজ ফাতেমা, ভাতিজা অভিক ইস্কান্দার ও ভাগ্নি সামিয়া ইস্কান্দার।

সর্বশেষ ২১ ফেব্রুয়ারি বিএসএমএমইউ হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দারসহ পরিবারের পাঁচ সদস্য।

জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ড নিয়ে বন্দি আছেন খালেদা জিয়া। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি দণ্ডিত হওয়ার পর তাকে নেয়া হয় পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে। কয়েক দফায় সেখান থেকে এনে তাকে বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা দেয়া হয়। সর্বশেষ গত বছর ১ এপ্রিল খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকে সেখানেই চিকিৎসাধীন তিনি।

Comments