খুনের রাজনীতির পৃষ্ঠপোষক বিএনপি ও খালেদা জিয়া: আমু

খুনের রাজনীতির পৃষ্ঠপোষক বিএনপি ও খালেদা জিয়া: আমু

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বয়ক-মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি বলেছেন, উত্তরাধিকার সূত্রে খুনের রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতা করছে বিএনপি ও খালেদা জিয়া। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের হত্যার মাধ্যমে এ দলকে নিশ্চিহ্ন করাই ছিল ২১ আগস্টের ভয়াল গ্রেনেড হত্যাকাণ্ডের মূল লক্ষ্য। ১৫ আগস্টের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতেই শেখ হাসিনার জীবননাশের অপচেষ্টা চালিয়েছিল ঘাতক চক্র।

রোববার ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে ১৪ দলের ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে আমির হোসেন আমু এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্ট একই সূত্রে গাঁথা এবং তাদের লক্ষ্য এক ও অভিন্ন। জিয়াউর রহমান পঁচাত্তরে যেভাবে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের রাজনৈতিক পুনর্বাসন ও পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন, ঠিক একইভাবে ২০০৪ সালের ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলাকারীদের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন খালেদা জিয়া।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি বলেন, বিএনপি একটি ফ্যাসিস্ট দল। তারা হত্যা ও খুনের রাজনীতি বহনকারী দল। এ দেশে তাদের রাজনীতি করার অধিকার নেই।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক বলেন, পঁচাত্তরের খুনি চক্র আর ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলাকারীরা একই। তারা পাকিস্তানের ভাবধারায় বিশ্বাসী। ধর্মনিরপেক্ষতার অপব্যাখ্যা দিয়ে এই অপশক্তি সবসময় দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহার করে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট পঁচাত্তরের মতো হত্যাকাণ্ড চালানোর ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র করেছিল। সুযোগ পেলেই তারা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। এই অপশক্তির বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার থাকতে হবে।

আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপির সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন- ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহীদুল ইসলাম, তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী এমপি, গণআজাদী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট এসকে শিকদার, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, বাসদের আহ্বায়ক রেজাউর রশিদ খান, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাৎ হোসেন, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

Comments