চীনের সিনোফার্মের টিকার অনুমোদন

চীনের সিনোফার্মের টিকার অনুমোদন

দেশে জরুরি আমদানি ও ব্যবহারের জন্য করোনাভাইরাসের তৃতীয় টিকা হিসেবে অনুমোদন পেল চীনের সিনোফার্ম (বেইজিং) কম্পানির আবিষ্কৃত ও উৎপাদিত বিবিআইবিপি-সিওরভি টিকা। দেশে প্রথম অনুমোদিত অক্সফোর্ড- অ্যাস্ট্রাজেনেকার মতোই একই এডোনোভাইরাস গোত্রের এই টিকাও দুই ডোজের। তবে প্রথম ডোজ নেওয়ার ২৮ দিন পর দিতে হবে দ্বিতীয় ডোজ। ট্রায়ালে এই টিকার কার্যকারিতা ৭৯.৩৪ শতাংশ দেখা গেছে। এক থেকে দেড় সপ্তাহের মধ্যে পাঁচ লাখ ডোজ ওই টিকা দেশে আসছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান তাঁর দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।

এর আগে গত মঙ্গলবার অনুমোদন পায় রাশিয়ার গেমেলিয়া ইনস্টিটিউটের স্পুৎনিক ভি। আর গত ৮ জানুয়ারি অনুমোদন দেওয়া হয় অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভিশিল্ড। এই অনুমোদনের পাশাপাশি চীন ও রাশিয়ার টিকা বাংলাদেশে উৎপাদনের জন্য সরকার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে। এখন সেই প্রক্রিয়া এগিয়ে চলবে।
গতকাল ব্রিফিংয়ে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, ‘চীনের এই টিকার সব কিছু যাচাই-বাছাই করে আমাদের টেকনিক্যাল কমিটি জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছে। সে অনুযায়ী আমরা এই টিকার অনুমোদন দিয়েছি।’ তিনি বলেন, ‘এর পরও আমরা এই টিকা দেশে আনার পর এক হাজার মানুষের ওপর ট্রায়াল করব। তারপর সবার জন্য দেওয়া হবে।’

প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম ডোজ যাঁরা নিয়েছেন তাঁরা দ্বিতীয় ডোজ হিসেবে চীন বা রাশিয়ার টিকা নিতে পারবেন কি না, সেটা এখনো নিশ্চিত নয়। এটা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। আমাদের টেকনিক্যাল কমিটিও এটা নিয়ে কাজ করছে। তাদের মতামত অনুযায়ী আমরা সিদ্ধান্ত নেব।’

Comments